nesha kete geleo tumi theke jabe tshirt

Short Story | নেশা কেটে গেলেও , তুমি থেকে যাবে

নেশা কেটে গেলেও , তুমি থেকে যাবে

“না না না।।এভাবে আর চলতে পারেনা আলাপ।দ্যাখ তুই এখন একা নয়।দুদিন পর তোর বিয়ে।কত ভালো একটা মেয়ে।কোনোদিন তোর পাস্ট সম্পর্কে জানতে চায়নি। শিক্ষিত, মার্জিত।তুই নিজে এত ভালো চাকরি করিস। এখনো সেই একটা মেয়েকে নিয়ে,জাস্ট ভাবতে পারছিনা।৪ বছর হতে চলল। প্লিজ, ফর গডস সেক, এবার এই নেশা করা বন্ধ কর।জীবনের অনেক সময় শেষ করে দিয়েছিস।এখন ভালো একটা মেয়ের সাথ এ আছিস।কাকু কাকিমার এমনিতেই সব স্বপ্ন শেষ করে দিয়েছিলি , মেয়েটার জীবন টা শেষ না করলেই নয় কি??কেন কষ্ট দিচ্ছিস ওকে?”

পরিচয় এর এতগুলো কথা যেনো আলাপ এর কানে ঢুকতে বেশ সময় লেগে গেলো।।তারপর ধোঁয়া ধরা চোখে  মাথা তুলে বললো, “ভালোবাসা কি বুঝিস?বুঝিস নারে।।বুঝলে এইসব বলতিস না। তাছাড়া আমি আকাঙ্খা কে বিয়ে করবনা সেটা তো বলিনি।সব দেবো ওকে।শুধু ভালোবাসাটা পারবোনা।”

এইসব শুনতে শুনতেই পরিচয় বাথরুম থেকে এক বালতি জল নিয়ে এসে মাথাই ঢেলে দিলো।তারপর বললো,”তোর সাথে কথা বলার থেকে কুকুরের সাথে কথা বলা ভালো। অসভ্য ছেলে একেবারে তুই।একটা মেয়ের জীবন নিয়ে এইভাবে খেলতে পারিসনা তুই।”

তারপর আলাপ এর পাশে গিয়ে বসে ওর মাথায় হাত বুলিয়ে বলল,”দ্যাখ ভাই, জীবনে আমার বউ,মা এর পর তুই ।তোর এইরকম কষ্ট আমি দেখতে পারবোনা।তুই প্লিজ হসপিটাল এ চল।দ্যাখ ডাক্তার রা সব পারে।।তোকে কোনো চিন্তা করতে হবে না।কেউ জানবে না।তোর কাউন্সিলিং প্রয়োজন।আমি তোর পায়ে পড়ি।”এই বলে পরিচয় যেনো কেদে ফেললো।

আলাপ সিগারেটে ধরাতে ধরাতে বললো,”দ্যাখ আমার মাথায় কোনো প্রবলেম নেই।কেনো যাব আমি হসপিটাল এ?বাকি রইলো ফ্যামিলি ,ওটা আমি ঠিক সামলে নেবো।বাকি তোকে কিছু ভাবতে হবে না।তুই বিয়ের আয়োজন এ মন দে।তোর ভাই এর বিয়ে।।কত্ত কাজ তোর।”

পরিচয় বুঝে গেলো প্রতিবারের মত এবারও সে বিফল।চুপচাপ চলে গেলো।

কিছুদিন পর আলাপ এর বিয়ে হয়ে গেলো। আকাঙ্খা সব জেনে শুনেই বিয়ে করলো।ভাবলো হইতো ওকে বদলে দেবে। বিয়ের এক সপ্তাহ পরেই শুরু মাতলামো।আকাঙ্খা কে কাছেই ঘেঁষতে দেয় না আলাপ। আকাঙ্খার চুপ করে থাকা ছাড়া আর উপায় হলনা।তারপর একদিন আর না পেরে পরিচয় কে ফোন করে ডেকে নিল দেখা করবে বলে।পরিচয় এর কাছ থেকে সব জানল আলাপ আর রুহিতার কথা।।ওরা ছোট বেলার বন্ধু।প্রেম সেই ছোট্ট থেকে।তারপর রুহিতা আমেরিকা চলে যায়।আর ফেরেনি।সেই থেকেই এইসব।

সেদিন আলাপ এতটাই মদ খেয়েছে যে আইনায় দাড়ালে নিজেকেই চিনতে পারবে না এরকম অবস্থা।

তার সঙ্গে গাঁজা।চারিদিকে ধোয়া। হটাৎ নেশার ঘোরে রুহিতার মুখটা ভেসে উঠলো।তারপর মিলিয়ে গেলো।

আবার যেনো একবার দেখলো। এই ভাবেই ঘুমিয়ে গেলো।সেদিন আর না পেরে আকাঙ্খা সুইসাইড করার চেষ্টা করলো।পরের দিন কাজের মাসী ডাকছিল,না ওঠায় সে লোক এনে দরজা ভেঙে দিলো।দেখলো এক ঘোরে আলাপ নেশার ঘোরে পরে আছে , এক ঘরে আকাঙ্খা পড়ে আছে । নিশ্বাস তখনো আছে,কিন্তু হইতো বিশ্বাস টা নেই।

এক বছর পর….

আকাঙ্খার বোনের বিয়ে।।পরিচয় নিজে হতে সব সামলাচ্ছে। খুব সুখী তারা।।ভালোবাসাটা কতটা সত্যি সেটা আর যাচাই করে না আকাঙ্খা। ভালোবেসে ফেলেছে খুব আলাপ কে।

পরিচয় এর স্ত্রী এসে বললো,”ছেলেটা এক বছরে একেবারে বদলে গেলো।তাইনা??”

পরিচয় তখন আলাপ এর দিকে তাকিয়ে দীর্ঘ নিশ্বাস ফেলে  বললো ,ওর মন সারাজীবন একটা কথাই বলে এসেছে, এখনো বলে আর  সারাজীবন বলবে,সেটা হলো,

“নেশা কেটে গেলেও,তুমি থেকে যাবে।”

— Written By Samapti Ghorai

Morning Motivation
Short Story | ইমোশনাল হলে চলবে না, প্রেম জীবনে বার বার আসবে

Leave a Reply

Viewed
Navigation
Close

My Cart

Close

Wishlist

Recently Viewed

Close

Close

Categories

%d bloggers like this: